top-ad
১৯শে জুলাই, ২০২৪, ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১
banner
১৯শে জুলাই, ২০২৪
৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১

৪০০ বছরের পুরোনো হরিজন সম্প্রদায় উৎখাতের বিপক্ষে জোড়ালো প্রতিবাদ সমাবেশ নিউইয়র্কে

গত ১৩ই জুন ২০২৪ বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় এস্টোরিয়া কুইন্সের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কন্সুলেট অফিসের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশ ও কনসুল জেনারেল বরাবর একটি স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। উক্ত প্রতিবাদ সমাবেশে ঢাকার বংশালে ৪০০ বছরের পুরোনো মিরনজিল্লা পল্লিতে হরিজন সম্প্রদায় উৎখাতের বিপক্ষে জোড়ালো প্রতিবাদ জানানো হয়। চারশত বছর যাবত বংশ পরম্পরায় বসবাসরত প্রায় পাঁচশতাধিক হরিজন পরিবারকে দুদিনের মধ্যে কলোনি ছাড়ার নোটিশ জারি করে কলোনির কিয়দংশ ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে। ফলে সেখানকার ৮০টি পরিবারের ছিন্নমুল মানুষ পাশ্ববর্তি মন্দিরে, বিদ্যালয়ে ও কমিউনিটি সেন্টারে আশ্রয় নিয়ে দুর্বিসহ জীবন যাপন করছে। গত সোমবার কলোনী উচ্ছেদের প্রথম দিনে আতঙ্কে হৃদরোগগ্রস্ত লক্ষী রানী নামের এক মহিলার মৃত্যু হয়। উচ্ছেদকৃত শাম্মীদাস কষ্টে আত্ম হত্যার প্রয়াস করে। নতুন করে আবার তাদের ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে এবং স্থানীয় কমিশনার সাহেব কলোনীর আশপাশে মস্তানদের মাধ্যমে এক ভীতিকর নারকীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। এই দুঃখজনক পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠায় দিন কাটাচ্ছে সেখানকার শত শত হরিজন নাগরিক।

এহেন পরিস্থিতিতে ইউনাইটেড হিন্দুস অব ইউএসএ একটি প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। সভার প্রারম্ভে গীতা পাঠ করে ইসকনের ভক্ত শ্রী ভবতোষ মিত্র। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শ্রী রামদাস ঘরামী সঞ্চালনায় সভার সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শ্রী ভজন সরকার। তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন সরকারের কতিপয় সংস্থা বাংলাদেশের হিন্দু দেশ ছাড়া করার চক্রান্তে লিপ্ত আছে। তিনি সরকারের দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন, সরকার যেন হরিজন সম্প্রদায়কে পুনবার্সিত না করে উচেছদ না করেন।

উক্ত সভায় বক্তব্য দেন পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান ডাঃ প্রভাত চন্দ্র দাস। তিনি তার বক্তব্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হিন্দুদের বিরুদ্ধে বিমাতা সুলভ আচরন পরিবার করে মাতৃ সুলভ আচরন করার অনুরোধ করেন। উপদেষ্ঠা বাবু নবেন্দু দত্ত উল্লেখ করেন যদি হরিজনদের উচ্ছেদ করা হয় তাহলে যেন তাদের উপযুক্ত ব্যবস্থা নিয়ে তারপর উচ্ছেদ করা হয়। সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী উত্তম কুমার সাহা তিনি তার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে ১৯৭১ সালে হরিজন সম্প্রদায়ের অনেক স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহন করে মৃত্যুবরণ করেন। তাই সরকারের উচিত তাদের একটা সুনিশ্চিত ব্যবস্থা করা। সংগঠনের মেম্বার সেক্রেটারী বাবু সুশীল সিনহা মহোদয় তিনি তার বক্তব্যে প্রধামমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর স্থায়ী সমাধানের আশ্বাস দেন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শ্রী রামদাস ঘরামী বলেন, আপনি প্রধানমন্ত্রী আছেন, আপনি আজীবন প্রধানমন্ত্রী থাকেন আমাদের কোন আপত্তি নেই, কিন্তু মৌলবাদীদের খুশি করতে আমাদের ব্যবহার করবেন না। সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি শ্রী ভবতোষ মিত্র বলেন, বাংলাদেশে যদি বিহারী, রোহিঙ্গাদের জায়গা হয় তাহলে, ৪০০ বছর ধরে বসবাসকরী হরিজনদের কেন উচ্ছেদ করা হবে।
উক্ত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, পরেশ ধর, জয়দেব গায়েন, দীনেশ মজুমদার, দীপংকর সাহা, প্রসঞ্জিত বড়–য়া, কৃষান দাস ও প্রমুখ।

আরো খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

জনপ্রিয় খবর