top-ad
২৪শে এপ্রিল, ২০২৪, ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১
banner
২৪শে এপ্রিল, ২০২৪
১২ই বৈশাখ, ১৪৩১

ইতিহাস গড়া জয় পেল বাংলাদেশ

ইতিহাস গড়েই জিতলো বাংলাদেশ। টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ রানে জয় পেল টাইগাররা। সিরিজের একমাত্র টেস্টে আফগানিস্তানকে হারিয়েছে ৫৪৬ রানে।

বড় নাটকীয় ছিল জয়ের শেষ মুহূর্তটা। তাসকিনের এক ওভারে দুইবার বেঁচে যায় আফগান ব্যাটার জহির খান। প্রথমে জহির খানকে কট-বিহাইন্ড দিয়েছিলেন আম্পায়ার, তাসকিন ছুঁয়ে ছিলেন ৫ উইকেট। সেজদাও দিয়ে ফেলেছিলেন তিনি। কিন্তু রিভিউ নিয়ে রক্ষা পান। পরের বলে দেন স্ট্যাম্প ভেঙে। তবে এবার নো বলের কবলে পড়ে জয় উদযাপন দীর্ঘায়িত হয়।

জয় নিশ্চিত হয়েই ছিল, শুধুই বাকি ছিল আনুষ্ঠানিকতা। অপেক্ষা ছিল কত আগে সেই জয় ধরা দেয়। অপেক্ষা অবশ্য বেশীক্ষণ করতে হয়নি, আফগানদের অলআউট করতে প্রথম সেশনও লাগেনি। ২২ ওভারে শেষ ৮ উইকেট হারিয়েছে সফরকারীরা। তাদের ইনিংস থেমেছে ৩৩ ওভারে মোটে ১১৫ রানে।

২ উইকেটে ৪৬ রান নিয়ে আজ চতুর্থ দিন শুরু করে আফগানিস্তান। এই দিন আর দাঁড়াতেই পারেনি তারা। টাইগার পেসারদের দাপটে প্রতিনিয়ত ধুঁকেছে তারা। গুনেছে হারের জন্য প্রতিক্ষার প্রহর।

শনিবার মাত্র ৩ রান যোগ করতেই তৃতীয় উইকেট হারায় তারা। জামাল নাসিরকে ফেরান এবাদত হোসেন। এরপর আফসার জাজাইকে নিজের শিকার বানান শরিফুল ইসলাম। জামাল ও জাজাই দুজনেই আউট হন ৬ রান করে। এরপর তাসকিনের আঘাত, ফেরেন ৩০ রান করে ফেলা রহমত শাহ। তাকে লিটন দাসের ক্যাচ বানান তিনি। আর দলীয় ৯৮ রানে করিম জানাতের উইকেট ভাঙেন এই পেসার।

এরপর আর ১৭ রান যোগ করে আফগানিস্তান দল। বলার মতো রান পায়নি আর কেউ। পারেনি দুই অংকের ঘর স্পর্শ করতে। ফলে ১১৫ রানেই থামে তাদের ইনিংস।

প্রথম ইনিংসে নিজেকে হারিয়ে খুঁজা তাসকিন এই ইনিংসে শিকার করেছেন ৪ উইকেট। ৩টি উইকেট যায় শরিফুলের ঝুলিতে। অন্য দুটো মিরাজ ও এবাদতের।

অবশ্য এই জয়ের ভিত গড়া হয়ে গেছে আগের তিন দিনেই। মিরপুরে নিজেদের প্রথম ইনিংস থেকে বাংলাদেশ দল লিড পায় ২৩৬ রানের। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নাজমুল হোসেন শান্তর ১৪৬ রানে ভর করে প্রথম ইনিংসে ৩৮২ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে আফগানিস্তান গুটিয়ে যায় ১৪৬ রানে।

ফলোঅন করানোর সুযোগ থাকলেও স্বাগতিকরাই দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যাটিংয়ে নামে। এবার ছাপিয়ে যায় আগের ইনিংসকেও। জোড়া শতক হাঁকান মুমিনুল হক ও শান্ত। ফিফটি করেন জাকির হাসান ও লিটন দাস। বাংলাদেশ দল থামে ৪ উইকেটে ৪২৫ রান তুলে। বাংলাদেশের লিড দাঁড়ায় ৬৬১ রান।

এই ম্যাচে জোড়া শতক হাঁকান নাজমুল হোসেন শান্ত। প্রথম ইনিংসে ১৪৬ ও দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ১২৪ রান। শতক হাঁকান মুমিনুল হকও, তার ব্যাটে আসে ১২১ রান।

আরো খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

জনপ্রিয় খবর