top-ad
২৪শে এপ্রিল, ২০২৪, ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১
banner
২৪শে এপ্রিল, ২০২৪
১২ই বৈশাখ, ১৪৩১

তাসকিন ঝড়ে দুর্দান্ত জয় বাংলাদেশের

আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টি২০ ম্যাচে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। আজ সোমবার চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে বাংলাদেশ ২২ রানে পরাজিত করেছে আয়ারল্যান্ডকে। তাসকিন আহমেদের অবিশ্বাস্য বোলিং দলকে এই জয় এনে দিতে সহায়তা করেছে।

বৃষ্টি আইনে আয়ারল্যান্ডকে ২২ রানে হারালো বাংলাদেশ

ব্যাট হাতে লিটন দাস ও রনি তালুকদারের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের পর বল হাতে তাসকিন আহমেদ করলেন দুর্দান্ত বোলিং। আর এর ফলে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আয়ারল্যান্ডকে বৃষ্টি আইনে আজ সোমবার ২২ রানে হারালে বাংলাদেশ। সুবাদে ৩ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল টাইগাররা।

চট্টগ্রামে উদ্বোধনী জুটিতে শুরুতে বাংলাদেশকে চমকে দিলেও সেই চমক বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি, বলা যায় হতে দেননি তাসকিন আহমেদ। দারুণ বল করেছেন এই পেসার। নিজের প্রথম ওভারে মাত্র ৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট তোলে নেয়ার পর নিজের দ্বিতীয় ও দলের শেষ ওভারে ৯ রান দিয়ে তুলে নেন আরো ১ উইকেট। সব মিলিয়ে তার স্পেলটি ছিল ২-০-১৬-৪!

২.৪ ওভারে ৩২ রানের মাথায় আইরিশদের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন হাসান মাহমুদ। মার্ক অ্যাডাইরের স্ট্যাম্প ভাঙেন তিনি। পরের ওভারেই তাসকিন ঝলক, প্রথম বলে লরকান টাকারের স্ট্যাম্প ভাঙার পর চতুর্থ বলে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠা পল স্টার্লিংয়ের স্ট্যাম্পও ভাঙেন এই পেসার৷ পরের বলেই ফেরান জর্জে ডকরেলকে শামিমের ক্যাচ বানিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জাগিয়ে তুলেন তাসকিন।

পরের ওভারে হাসান মাহমুদ ১৬ রান দিলেও তা বাংলাদেশের জয়ের জন্য বাঁধা হতে পারেনি। ষষ্ঠ ওভারে সাকিব আল হাসান মাত্র ৫ রান দিলে শেষ ২ ওভারে আইরিশদের প্রয়োজন ছিল ৩৯ রান। আর শেষ ওভারে প্রয়োজন হয় ৩২ রান। তবে সেই ওভারে মাত্র ৯ রানের বিনিময়ে হ্যারি টেক্টরের উইকেটটাও নিয়ে নেন ঝুলিতে৷ ২২ রানের জয় পায় বাংলাদেশ।

এর আগে চট্টগ্রামে দেখা মেলে নতুন এক বাংলাদেশের৷ যেই বাংলাদেশ বড্ড সাহসী, যেই বাংলাদেশ ভয়ঢরহীন, নির্দয়! শুর‍ু থেকে শেষ, সবার লক্ষ্য একটাই; আক্রমণ। সুবাদে দুইশো পেরিয়েছে বাংলাদেশের সংগ্রহ। তবে বৃষ্টি বাধায় ইনিংস শেষ করতে পারেনি টাইগাররা, চার বল বাকি থাকতেই মাঠ ছাড়তে হয়েছে সাকিব আল হাসানদের। বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৯.২ ওভারে ৫ উইকেটে ২০৭ রান।

এইদিন টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই হাত খোলে খেলতে থাকেন লিটন দাস ও রনি তালুকদার। বিধ্বংসী হয়ে উঠেন দু’জনেই, ঝড়ো গতিতে ব্যাট করতে থাকেন তারা৷ পাওয়ার প্লেতে নিজেদের ইতিহাসের সর্বোচ্চ ৮১ রান তোলে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের প্রথম উইকেটের পতন হয় ৭.১ ওভারে দলীয় ৯১ রানে৷ ৪ চার আর ৩ ছক্কায় ২৩ বলে ৪৭ রান করে ফিরেন লিটন দাস। আউট হবার আগে অবশ্য বাংলাদেশের পঞ্চম ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে ১৫০০ রানের গণ্ডি স্পর্শ করলেন লিটন দাস। মাত্র ৬৮ ইনিংসে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন তিইনি, যা বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম।

লিটন অর্ধশতকের আক্ষেপে পুড়লেও এইদিন ক্যারিয়ারের প্রথম অর্ধশতক তোলে নেন রনি তালুকদার। মাত্র ২৪ বলে অর্ধশতক পূরণ করেন তিনি। তবে বড় হয়নি নাজমুল হোসেন শান্তর সাথে তার দ্বিতীয় উইকেট জুটি। ভয়ংকর হয়ে উঠার আগেই ফিরেন শান্ত স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেন হ্যারি টেক্টর, ১৩ বলে ১৪ রান করেন তিনি।

এইদিন ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পেয়ে চার নাম্বারে নেমে আসেন শামিম পাটোয়ারী। হাত খুলে খেলতে থাকেন তিনিও। তবে তেকে রেখেই ১৪তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ১৫৪ রানে ফিরেন লিটন। গ্রাহাম হিউমের বলে আউট হবার আগে খেলেছেন ৩৮ বলে ৬৭ রানের বিধ্বংসী এক ইনিংস। নিজের ক্যারিয়ার সেরা এই ইনিংসটা রনি সাজান ৭ চার আর ৩ ছক্কার মারে।

এরপর তাওহীদ হৃদয়ের সাথে জুটি গড়েন শামীম, ২ চার ১ ছক্কাউ ২০ বলে ৩০ রান করে আউট হন তিনি। ইনিংসটা বড় না হলেও শামীমের ইনিংসটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল। হৃদয় আউট হন ৮ বলে ১৩ রানে। তবে শেষ দিকে নেমে ঝড় তোলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। দলকে ২০০ রানের গণ্ডি অতিক্রম করান তিনি।

বৃষ্টি বাঁধায় খেলা বন্ধ হবার আগে ১৩ বলে ২০ রানে সাকিব আল হাসান ও ১ বলে ৪ রানে অপরাজিত মেহেদী মিরাজ। দলীয় সংগ্রহ এখন ১৯.২ ওভারে ৫ উইকেটে ২০৭ রান।

আরো খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

জনপ্রিয় খবর