top-ad
২৪শে এপ্রিল, ২০২৪, ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১
banner
২৪শে এপ্রিল, ২০২৪
১২ই বৈশাখ, ১৪৩১

শামিকে লক্ষ্য করে ‘জয় শ্রীরাম’ : কিছুই জানতেন না রোহিত!

আহমদাবাদে অনুষ্ঠিত ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার চতুর্থ ও শেষ টেস্টের ফলাফলকে ছাপিয়ে একটি বিতর্ক সামনে চলে এসেছে। ভারতের ফাস্ট বোলার মোহম্মদ শামিকে দেখে আহমদাবাদের গ্যালারি থেকে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেন দর্শকদের একাংশ। যে ঘটনার ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজ্যেই কিনা এমনভাবে অপমানিত হতে হলো ভারতের জাতীয় দলের তারকা পেসারকে! এই অনভিপ্রেত ঘটনার পর অনেক প্রশ্নই উঠেছে। তীব্র নিন্দা হচ্ছে ক্রিকেটপ্রেমীদের এই আচরণ নিয়ে।

ঘটনাটি ঘটে গত বৃহস্পতিবার আহমদাবাদ টেস্টের প্রথম দিন। ফিল্ডিং করতে নামার আগে বাউন্ডারি লাইনের ধারে দাঁড়িয়ে ছিলেন ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা। তাদের সাথে ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ফাস্ট বোলার শামিও। ওই সময় গ্যালারি থেকে কয়েকজন দর্শককে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দিতে শোনা যায়। কয়েকজন শামির নাম করেই চিৎকার করেন। বহুক্ষণই এই ঘটনা চলতে থাকে। যদিও শামি বা ভারতীয় দলের অন্য ক্রিকেটাররা এতে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি।

একমাত্র সূর্যকুমার যাদবকে দেখা যায় হাত জোড় করে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দেয়া দর্শকদের চুপ করার অনুরোধ করতে। ভারতের বাকি ক্রিকেটাররা গ্যালারির দিকে ফিরেও তাকাননি ওই সময়ে। মজার ঘটনা হলো, ওই দিন সেই সময়ে স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্থনি আলবানিজের সাথে উপস্থিত ছিলেন খোদ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার সামনেই ঘটে এমন লজ্জাজনক ঘটনা।

সিরিজ শেষ হওয়ার পর রোহিত শর্মা সংবাদ সম্মেলনে এলে তাকে এই ঘটনা নিয়ে প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। এতে রোহিত বেশ অস্বস্তিতে পড়ে যান। ভারত অধিনায়ক সাফ জানিয়ে দেন, শামির বিষয়টি নাকি এই প্রথমবার শুনলেন তিনি! তাঁর দাবি, ‘শামিকে লক্ষ্য করে জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেয়া হয়েছে, সেটা জানতাম না। এই প্রথমবার এহেন ঘটনার কথা শুনলাম। মাঠে কী হয়েছে, সত্যিই জানতাম না।’

দর্শকদের এই আচরণের নিন্দা করেছেন ক্রিকেটপ্রেমীদের একাংশ। ভারতীয় দলেরই এক ক্রিকেটারকে খেলা শুরুর আগে কেন এভাবে অস্বস্তিতে ফেলা হচ্ছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। খেলার মধ্যে অকারণে রাজনীতি আনার অভিযোগ করেছেন কেউ কেউ। যদিও ভারতীয় দল এই বিতর্কিত ঘটনা নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন। কোনো মন্তব্য করা হয়নি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকেও।

এই প্রথম নয়। আগেও শামিকে ক্রিকেটপ্রেমীদের একাংশের বিদ্রুপের মুখে পড়তে হয়েছে। বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা জানিয়েও বিদ্রুপের মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে। ২০২১ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে ভালো বল করতে পারেননি শামি। তখনো ক্রিকেটপ্রেমীদের একাংশ হারের জন্য দায়ী করেছিলেন শামিকে। দলগত ব্যর্থতার দায় চাপানো হয়েছিল তার উপর। সে সময় শচিন টেন্ডুলকর, ভিভিএস লক্ষ্মণরা প্রতিবাদ করেছিলেন। শামির পাশে দাঁড়িয়েছিল আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোও।
সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

আরো খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

জনপ্রিয় খবর